Home / ধর্ম / ঈদগাহে মমতা ব্যানার্জি বলেন ‘এই বৃষ্টি আল্লাহ্‌র আশির্বাদ’

ঈদগাহে মমতা ব্যানার্জি বলেন ‘এই বৃষ্টি আল্লাহ্‌র আশির্বাদ’

এই বৃষ্টি আল্লাহ্‌র আশির্বাদঃ ঈদ্গাহ ময়দানে দেখা গেল পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জিকে। কলকাতার জাকারিয়া স্ট্রিটের ঈদগাহ ময়দানে এদিন তিনি মুসল্লীদের ঈদের শুভেচ্ছা জানাতে আসেন। মমলতার আগমনে স্থানীয় মুসলীরা উচ্ছ্বসিত হয়। মমতা ঊর্দুতে বলেন, আজ ঈদের দিন। আল্লাহর কাছে দোয়া করি, আপনার পরিবার, আপনার ভবিষ্যত আপনার দেসশের মঙ্গল হোক। আপনাদের ঈদের অনেক অনেক শুভেচ্ছা ও শুভ কামনা।

তিনি বলেন, ‘আজ আকাশে একটু বৃষ্টির আভাস দেখা যাচ্ছে। এই বৃষ্টি কিন্তু সাধারণ বৃষ্টি নয়, এটা আপনাদের জন্য আশির্বাদ। আপনারা একমাস রোজা রেখেছেন, অনেক কষ্ট করেছেন, অনেক কষ্টে পুরো মাস অতিক্রম করেছেন আল্লাহ আপনাদের নিশ্চই সে পুরস্কার দেবেন ইনশাল্লাহ।

মমতার সাথে কলকাতার মুসলিম্পাড়ার সখ্য বেশ। মমতার জন্যও জাকারিয়া স্ট্রিট, মির্জা গালিব স্ট্রিট, মার্কুইস ট্রিট পুরো ধর্মতলা ও এসপ্লানেড এলাকার মুসলমান অধিকাবাসীরা নিবেদিতপ্রাণ। নির্বাচনের সময় মমতার জন্য এইসব এলাকার মানুষেরা ব্যাপক পরিশ্রম করে। স্বাভাবিকভাবেই দুঃখের পাশপাশি খুশির দিনেও মমতা তারা কাছেই পান।

ভিন্ন প্রসঙ্গ, এই পর্যায়ের ধর্মীয় মেরুকরণ বঙ্গ রাজনীতিতে আগে দেখা যায়নি৷ ভোটের ফলাফলেও যা স্পষ্ট৷ ফলাফল প্রকাশের পাক্কা দু’দিন পর সাংবাদিক সম্মেলন করে মমতা নিজের মন্তব্যের মাধ্যমেই তোষণের রাজনীতির ব্যাখ্যা দিয়েছেন৷ তিনি বলেছেন, ‘আমি কিন্তু ইফতারে যাচ্ছি৷ আপনারাও আসবেন৷ আমি তো মুসলমানদের তোষণ করি৷ ১০০ বার যাব৷ যে গরু দুধ দেয় তার লাথি খাওয়া উচিত৷’

লোকসভা নির্বাচনের প্রচার চলাকালীন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ রাজ্যে ৩৩টি সভা করেছেন৷ প্রতিটি সভাতেই তাঁরা মমতার সংখ্যালঘু তোষণ নিয়ে সরব হয়েছেন৷ বাংলাদেশী অনুপ্রবেশকারীরাই যে মমতার ভোটব্যাংক তা স্পষ্টভাবে জানিয়েছেন মোদী-শাহ৷ অন্যদিকে সিপিএমও বারবার প্রতিযোগিতামূলক সাম্প্রদায়িকতার কথা বলে মমতার সংখ্যালঘু তোষণের রাজনীতিকে আক্রমণের কেন্দ্রবিন্দুতে নিয়ে গিয়েছে৷ যুতসই জবাব দিতে মমতা শনিবার বিকালের সাংবাদিক সম্মেলনকেই বেছে নিয়েছেন৷ সাফ জানিয়েছেন, ‘আমার মা বলেছিলেন মমতা যেন মমতাই থাকে৷ মনে রাখবেন, মমতা মমতাই থাকবে৷ নিজেকে কোনওদিন বদলাবে না৷

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *